ইংরেজি লেখার দক্ষতা বাড়াতে ৮ টি টিপস

ইংরেজিতে চমৎকার ভাবে লিখতে পারাটা একটা দক্ষতা । ইংরেজিতে লেখার দক্ষতা অর্জনের জন্য প্রয়োজন চর্চা এবং সঙ্কল্প । কেউই চমৎকার লেখক হয়ে জন্মায় না । আর ইংরেজি যেহেতু আমাদের মাতৃভাষা নয়, সেই ক্ষেত্রে ইংরেজি লেখার অভ্যাস করার জন্য আমাদেরকে একটু বেশি পরিশ্রম করতে হবে । ইংরেজিতে চমৎকার ভাবে লেখার কলাকৌশল রপ্ত করতে হলে প্রচুর অনুশীলন এবং প্রচুর সময় দিতে হবে । যে কেউ চাইলে চমৎকার ইংরেজি লিখতে পারে যদি তার প্রবল ইচ্ছাশক্তি থাকে ।

writing

ইংরেজিতে লেখার দক্ষতা বাড়াতে চান কেন? নিশ্চই কোন না কোন কারণ আছে । হয়তোবা আপনি আপনার কর্মক্ষেত্রে অথবা ইউনিভার্সিটির ক্লাসের জন্য ইংরেজিতে লেখার দক্ষতা বাড়াতে চান । আবার আমরা অনেকেই আছি ব্লগিং করি, কেউ কেউ আছেন যাদের পেশাই হচ্ছে আর্টিকেল লেখা বা কন্টেন্ট লেখা । অথবা আপনি আপনার ইমেইলের উত্তর দেওয়ার জন্য ইংরেজি লেখার চর্চা করছেন । কারণ অনেক থাকতে পারে, কিন্তু ইংরেজিতে লেখার দক্ষতা অর্জন করতে হবে এটাই হলো মুল কথা ।

ইংরেজিতে লেখার দক্ষতা বাড়ানোর জন্য নিচে ৮ টি টিপস দেওয়া হলো :

১. আপনার সবগুলো লেখা এক জায়গায় রাখুন

একটা নোটবুক অথবা জার্নাল কিনে রাখুন । অথবা কম্পিউটারে একটা জার্নাল তৈরি করুন । যা লিখবেন সব এক জায়গাতেই লিখবেন । এলোমেলো লিখবেন না । যেমন, আজকে লিখলেন এক নোটবুকে আবার কালকে আরেক কাগজে, এইরকম চলবে না । সব এক নোটবুকে বা জার্নালে লিখলে আপনি দেখতে পারবেন আপনি কতটুকু লিখতে পেরেছেন এবং আপনার লেখায় উন্নতি হচ্ছে কি না?

২. প্রতিদিন ইংরেজি লেখার চর্চা করুন

প্রতিদিন ইংরেজি লিখলে একদিন দেখবেন সেটা আপনার অভ্যাসে পরিনত হয়েছে এবং এই অভ্যাসটা আপনার জন্য খুবই গুরুত্বপূর্ন । প্রতিদিন ইংরেজি লেখার চর্চা করলে আপনি নিজেই বুঝতে পারবেন আপনার লেখার দক্ষতা আস্তে আস্তে বাড়ছে ।

৩. লেখার জন্য একটা বিষয় নির্বাচন করুন!

কি নিয়ে লিখবেন সেটা নিয়ে চিন্তা করার কোন দরকার নেই । আপনি যে কোন বিষয়ে লিখতে পারেন । আপনি কি করছেন বা কি করেন, আপনি যা দেখছেন বা শুনছেন, খবর, অথবা মনগড়া একটা গল্প তৈরি করুন । মোটকথা সামনে যা পাবেন সেটাকে একটা বিষয় নির্বাচন করে লেখা শুরু করুন ।

৪. আপনি যে বিষয়ে লিখবেন সেটাকে কয়েক ভাগে লিখুন

মনে করুন আপনি লেখা শুরু করেছেন কম্পিউটার নিয়ে । এখন কম্পিউটারের র‍্যাম, প্রসেসর, হার্ডডিস্ক এই সমস্ত বিষয় গুলোকে আলাদা আলাদা করে লিখুন । লেখার মাঝে মাঝে এই আলাদা আলাদা বিষয় গুলো বার বার পড়ে দেখবেন কোন কিছু ভুল করলেন কি না? হয়তো প্রসেসর নিয়ে আপনার কোন কথা মনে পড়লো তাহলে সেটা প্রসেসর অংশে লিখে ফেলুন । এই নিয়মে লিখলে, লেখা শেষে দেখবেন আপনি যা লিখতে চেয়েছেন সেটা আপনার এবং সবার বুঝতে বেশ সুবিধা হবে এবং আপনি যেটা বুঝাতে চেয়েছেন সেই বিষয়টা পুরোটাই আপনি বুঝাতে পেরেছেন ।

৫. গ্রামার ভুল ঠিক করার জন্য অনলাইনের সাহায্য নিন

গ্রামার এমনিতেই একটা বিরক্তিকর ব্যাপার আর সেটা যদি হয় ইংরেজী গ্রামার তাহলে তো কোন কথাই নেই । যাই হোক, ইংরেজী গ্রামারের সব কিছুই আপনার জানা না থাকলেও চলবে কারন আপনার এই সমস্যা সমাধানের জন্য অনলাইনে প্রচুর পরিমান রিসোর্স রয়েছে। আপনি চাইলে Grammarly, GrammarCheck, GrammarBook.com এই রিসোর্স গুলো ব্যাবহার করতে পারেন । ইংরেজীতে আপনার যে কোন ব্যাকরণজনিত সমস্যার সমাধান আপনি এই টুলস গুলো ব্যাবহার করে সমাধান করতে পারেন । Grammarly অবশ্যই আপনার মাইক্রোসফট ওয়ার্ডে ইনস্টল করে রাখবেন ।

৬. ভিন্ন ভিন্ন বিষয়ে লিখুন

প্রতিদিন একই বিষয়ে লিখলে আপনি নিজেই এক সময় বিরক্ত হয়ে যাবেন । চেষ্টা করবেন আলাদা আলাদা বিষয় নিয়ে লিখতে । আপনার যে বিষয় গুলো ভালো লাগে সেগুলোর একটা লিস্ট করে ফেলুন । এবার লিস্ট ফলো করে লিখুন ।

৭. ইংরেজীতে দক্ষ বন্ধু-বান্ধব

আপনার পরিচিত বা আপনার কোন বন্ধু-বান্ধব ইংরেজীতে দক্ষ থাকলে তাদের সাথে ভালো সম্পর্ক বজায় রাখুন । আপনার লেখা গুলো তাদেরকে দেখান এবং তাঁদেরকে প্রশ্ন করুন আপনার লেখা কোন ভুল আছে কি না? থাকলে সেটা কিভাবে ঠিক করতে হবে ? এতে করে দেখবেন আপনার লেখার জন্য আপনি আরো ধারনা পাবেন এবং যে সমস্যাটি হয়তো আপনার চোখ এড়িয়ে গেছে সেটা অন্য ব্যাক্তি বের করে দিতে পারবে ।

৮. কোথায় এবং কখন লিখবেন সেটা নির্বাচন করুন

যখন লিখবেন তখন বিভিন্ন জায়গা বা বিভিন্ন সময় নির্বাচন করে লিখবেন । এতে করে আপনি বুঝবেন কখন এবং কোথায় লিখলে আপনার বেশি ভালো লাগে। এটা একান্তই আপনার নিজস্ব ব্যাপার । এটা মেনে চলা বাধ্যতামূলক নয় । তবে অনেকে আছেন যারা হয়তো খুব সকালে উঠে লিখতে ভালোবাসে আবার কেউ আছে রাত জেগে লিখতে ভালোবাসে । তবে আপনি যেহেতু ইংরেজী লেখার প্রথম ধাপে আছেন আপনার উচিৎ হবে শব্দমুক্ত কোন স্থান নির্বাচন করা । সকাল হলো লেখার জন্য উত্তম সময় ।

ইংরেজী লেখা একটা চর্চার ব্যাপার । আপনি যত বেশি চর্চা করবেন তত ভালো ফলাফল পাবেন ।

About the Author tamanna

Leave a Comment: